এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “হিন্দুরা অনেক মরেছে, আরও মরুক”, বিজেপির রাজ্য সভাপতির বিতর্কিত ভিডিও ভাইরাল

“হিন্দুরা অনেক মরেছে, আরও মরুক”, বিজেপির রাজ্য সভাপতির বিতর্কিত ভিডিও ভাইরাল

লোকসভা নির্বাচনে হিন্দুদের শক্ত ভোটব্যাংককে পাথেয় করেই এবার বাংলার 42 টা আসনের মধ্যে 18 টা আসন নিজেদের দখলে রেখেছে বিজেপি। যা বর্তমানে শাসক দল তৃণমূলের ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে। তবে এবার যে হিন্দুরা ভোট দিয়ে বিজেপিকে 18 টা আসনে জয়লাভ করালেন, সেই হিন্দুদের সম্পর্কেই বিস্ফোরক মন্তব্য করতে শোনা গেল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে।

সূত্রের খবর, সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে যে, কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি কর্মীরা বিজেপির রাজ্য সভাপতির কাছে কিছু সমস্যার কথা জানাচ্ছেন। আর তা শুনেই “হিন্দুরা অনেক মরেছে, আরও মরুক” বলে মন্তব্য করছেন দিলীপ ঘোষ। আর এই ঘটনাতেই সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করেছে সব মহলে।

তাহলে কি যারা রাজনীতি করছেন, তারা একটি আসলে না জিতলেই সেখানকার মানুষের দুর্দশায় আর তাদের পাশে দাঁড়াবেন না! এটাই কি বঙ্গ রাজনীতির এখন রেওয়াজ হয়ে দাঁড়াল! বিশেষজ্ঞদের মতে, যে বাংলায় এক সময়ে সুভাষচন্দ্র বসু, বিধানচন্দ্র রায়ের মত ব্যক্তিত্বরা ছিলেন, সেই বাংলায় ভোট না দিলে সুবিধা পাওয়া যাবে না, রাজনীতির কাণ্ডারীরা তাদের পাশে দাঁড়াবেন না? এই নতুন নিয়ম চালু হল! তা নিয়েই উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

দেখা গেছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে কৃষ্ণনগরের একটি সমস্যার কথা বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে বলছেন তারই দলের কর্মীরা। আর সেখানেই দিলীপ ঘোষ কর্মীদের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন করছেন, “ওখানে বিজেপি হারল কেন!” পাল্টা কর্মীরা বলছেন, “সংগঠন ছিল না। আমরা তো করছি। আর এর পরেই ক্ষিপ্ত হয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, “সংগঠনটা কি আমি গিয়ে করব, না হিন্দুরা করবে!”

পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, “কৃষ্ণনগরের লোকের প্রতি আর কোনো মায়া নেই। ওরা জুলু বাবুকে হারিয়েছে। আবার কল্যাণকে হারিয়েছে। পাশে দেখুন, আড়াই লক্ষ ভোটে জিতেছি। কি কারনে ওদের জন্য করব আমরা! নির্মম হন, হিন্দু অনেক মরেছে, আরও মরুক।” বস্তুত, এবারে কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী কল্যান চৌবেকে হারিয়ে সেখানে জয়লাভ করেছেন তৃণমূলের মহুয়া মৈত্র।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এই কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্র বিজেপির সেফ সিট ছিল। কিন্তু তা সত্ত্বেও তারা এবার এখানে জয়লাভ করতে পারেনি। ফলে কর্মীরা কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্র নিয়ে বিজেপি রাজ্য সভাপতি কাছে কিছু সমস্যা নিয়ে আসায় তা শুনে বিজেপির রাজ্য সভাপতি এহেন মন্তব্য হতবাক করছে অনেককেই।

অনেকে বলছেন, এই হচ্ছে হিন্দু দরদী বিজেপির লক্ষণ। প্রকাশ্যেই হিন্দুরা মরছে মরুক বলে বিস্ফোরক মন্তব্য করছেন দিলীপ ঘোষ। আসলে বিজেপি হিন্দুদের নিয়ে ধর্মের রাজনীতি করে বলে এখন সমালোচনা করতে শুরু করেছে ঘাসফুল শিবির। সব মিলিয়ে হিন্দুদের বিপুল সমর্থন পাওয়া গেরুয়া শিবিরের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের হিন্দুদের সম্পর্কে বিস্ফোরক মন্তব্য নিয়ে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!