এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপি ক্ষমতায় এলে প্রথম মন্ত্রীসভার বৈঠকেই শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য দূর করা হবে: সায়ন্তন বসু

বিজেপি ক্ষমতায় এলে প্রথম মন্ত্রীসভার বৈঠকেই শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য দূর করা হবে: সায়ন্তন বসু


একদিকে যখন রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বার্ষিক কর্মসূচি – ধর্মতলায় শহীদ দিবস নিয়ে সাজো সাজো রব ঘাসফুল শিবিরের অন্দরে। অন্যদিকে, ঠিক তখনই আরও অন্ধকারের দিকে রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকরা, তথা রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থাই। ন্যায্য বেতনের দাবিতে উস্থি ইউনাইটেডের নেতৃত্বে রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের আমরণ অনশন আন্দোলন সপ্তাহ অতিক্রান্ত করতে চললেও – এখনও ঘুম ভাঙেনি রাজ্য সরকারের!

কিন্তু, উস্থির এই শিক্ষক আন্দোলন এখন প্রায় গন আন্দোলনে পরিণত হয়েছে। অনশন মঞ্চ ঘিরে প্রায় ১০ হাজার শিক্ষকের সমাবেশ এবং সেই ভিড় ক্রমশ বাড়ছে। আন্দোলনের ব্যাপকতায় তা সম্মিলিত বিরোধীদের সমর্থন পাশে পেয়েছে – রঙ-ঝান্ডা ভুলে। নিজেদের সমর্থন নিয়ে বিজেপি, বাম বা কংগ্রেস – সব দলেরই শীর্ষ নেতারা ছুটে এসেছেন। সবাই একযোগে মেনে নিয়েছেন শিক্ষকদের এই ন্যায্য দাবির কথা – তবুও ঘুম ভাঙেনি রাজ্য সরকারের।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর এবার বিজেপির শীর্ষনেতা সায়ন্তন বসু নিজের সমর্থন নিয়ে উপস্থিত হলেন উস্থির অনশন মঞ্চে। তিনি প্রথমেই স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিলেন – শিক্ষকদের এই আন্দোলন একেবারেই ন্যায্য এবং তিনি সর্বোতভাবে এই আন্দোলনের পাশে আছেন। এরপরেই তিনি তীব্র আক্রমন করেন রাজ্য সরকারকে। তিনি বলেন, এই রাজ্যে যাঁরা ক্লাব চালান বা প্রোমোটারি করেন তাঁরা অনেক টাকা পান, অথচ প্রাথমিক শিক্ষকরা সমাজ গঠনের মেরুদন্ড হয়েও বাড়িতে হাঁড়ি চড়বে না এমন বেতন পান – এটা লজ্জার!

সায়ন্তনবাবু আরও বলেন, জাতির সেই মেরুদন্ডকেই যদি ভেঙে দেওয়া হয়, তাহলে আজকে তো যা ক্ষতি হওয়ার হবেই, একই সঙ্গে ভবিষ্যতের আরও বড় ক্ষতি করে দেবে। ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের ২০০ তম জন্মবার্ষিকী পালনের বছরে, রাজ্য সরকার শিক্ষকদের উপরে যে অন্যায় করছে তা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না। CAG রিপোর্ট এসেছে, সেখানে দেখা যাচ্ছে রাজ্যের শিক্ষাদপ্তরের SSC পরীক্ষা নিয়ে চূড়ান্ত অনিয়ম, চূড়ান্ত হয়েছে।

এরপর সায়ন্তনবাবু জানিয়ে দেন, যেহেতু শিক্ষকদের বেতন রাজ্য সরকারের হাতে, তাই বিজেপি বর্তমানে শিক্ষকদের আন্দোলনকে সমর্থন করলেও, কেন্দ্র সরকার এই নিয়ে কিছু করতে পারবে না। কিন্তু, রাজ্যে বিজেপির সরকার হলে, প্রথম মন্ত্রীসভার বৈঠকেই শিক্ষকদের বেতন নিয়ে সব সমস্যার সমাধান করে কেন্দ্রিয়হারে বেতন দেওয়া হবে। এছাড়াও, সায়ন্তনবাবু শিক্ষকদের আন্দোলনের পাশে থেকে তাঁদের সর্বতভাবে সাহায্য করার জন্য সরকারি কর্মচারী পরিষদের রাজ্য আহ্বায়ক দেবাশীষ শীলকে বলেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!